প্রবেশগম্যতা সেটিংস

Tag

gijn

63 posts

বিশ্বজুড়ে যেভাবে ছড়িয়ে পড়ছে চীন ও রাশিয়ার তথ্য-নিয়ন্ত্রণ প্রযুক্তি

বিশ্বজুড়ে তথ্য নিয়ন্ত্রণের অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তির বিস্তার দিন দিন বেড়েই চলেছে। আর এর পেছনে অন্যতম ভূমিকা রাখছে চীন ও রাশিয়া। এসব প্রযুক্তি দেশে দেশে ছড়িয়ে দেওয়ার মাধ্যমে হুমকির মুখে পড়ছে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা। লঙ্ঘিত হচ্ছে মানবাধিকার। পড়ুন, কিভাবে দেশে দেশে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এসব তথ্য-নিয়ন্ত্রণ প্রযুক্তি ও নজরদারির ব্যবস্থা।

ইয়েমেন

ইয়েমেন’স ডার্টি ওয়ার: একটি পুলিৎজারজয়ী অনুসন্ধানের নেপথ্য গল্প

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনে কিভাবে মানুষ প্রতিনিয়ত মানবিক বিপর্যয়ের শিকার হচ্ছে, তা টানা কয়েক মাস ধরে অনুসন্ধান করেছেন এসোসিয়েট প্রেসের আরব সাংবাদিকরা। ২০১৯ সালে তাদের এই অনুসন্ধান জিতেছে পুলিৎজার পুরস্কার। কিভাবে তাঁরা করেছেন এই অনুসন্ধান? জিআইজেএন-এর আরবী সম্পাদক মাজদোলিন হাসান তুলে এনেছেন নেপথ্যের গল্পগুলো।

তেল-গ্যাস ও প্রাকৃতিক সম্পদ নিয়ে অনুসন্ধান করবেন? দেখুন, বিশেষজ্ঞরা কী বলছেন

তেল-গ্যাস ও খনিজ কোম্পানিগুলো বছরে শত শত কোটি ডলার আয় করে। এত টাকার কারবার যেখানে, দুর্নীতি সেখানে অনিবার্য বলা চলে। তার সাথে, মানুষের জীবনযাত্রা ও পরিবেশের ওপর খনির বিরূপ প্রভাব তো আছেই। তাই গোটা বিশ্বেই এটি হয়ে উঠেছে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার অন্যতম বিষয়। কিন্তু অনুসন্ধানের জন্য তথ্য পাবেন কোথায়, আর বিষয়ের গভীরেইবা যাবেন কীভাবে? পড়ুন, বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ।

আমার প্রিয় অনুসন্ধানী টুল: জোয়েল কোনোপো

বোতসোয়ানার অনুসন্ধানী সাংবাদিক জোয়েল কোনোপো কাজ করেছেন বেশ কয়েকটি সাড়াজাগানো অনুসন্ধানে। আধুনিক সব প্রযুক্তি ব্যবহার করে একদিকে যেমন পাঠক-দর্শককে দিচ্ছেন সংবাদ পাঠের নতুন অভিজ্ঞতা, অন্যদিকে নিরাপদ ও সুরক্ষিত রাখছেন নিজেকে ও সোর্সকে। সাংবাদিকতার বহুমাত্রিক কাজের জন্য তাঁর পছন্দের কিছু টুল আছে। সেগুলোর কথাই বলেছেন, “আমার প্রিয় টুল” সিরিজে।

মাত্র ১৫ সপ্তাহে একজন শিক্ষার্থীকে অনুসন্ধানী সাংবাদিক বানাবেন যেভাবে

চিলির সান্টিয়াগোতে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পড়ান পলেট দেজোর্মো। কোর্সের শুরুতেই শিক্ষার্থীদের বলা হয়, “নিজে নিজে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন তৈরি করতে হবে। বিষয় হতে হবে সমাজের জন্য প্রাসঙ্গিক। জোর দিতে হবে সরকারের নীতি; অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক বা বিচারিক ক্ষমতা; বা সংগঠিত অপরাধে।” শুনে মনে হতে পারে, উচ্চাভিলাষী। কিন্তু দেজোর্মো মনে করেন, শিক্ষার্থীদের অনুসন্ধানে পুরোপুরি নিয়োজিত করতে হলে, চিন্তার সীমারেখা একটু উঁচু হওয়া প্রয়োজন।

ভুয়া তথ্য ছড়ানোর নেপথ্যে কারা – অনুসন্ধান করবেন কীভাবে?

একটি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে সর্বপ্রথম যে ছবিটি পোস্ট করা হয়েছে, তাতে নজর দিন। সেটি প্রোফাইল পিকচারও হতে পারে। দেখুন সেই ছবিতে কোনো লাইক আছে কিনা। কেউ যখন প্রথম কোনো পেইজ খোলে তখন অনেক সময় নিজেদের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট থেকে তাতে লাইক দেয়।

প্রজেক্ট মিরোস্লাভা: সহকর্মীর হত্যাকাণ্ড যেভাবে একজোট করেছে মেক্সিকোর সাংবাদিকদের

উত্তর মেক্সিকোতে মাদকের কারবারী ও রাজনীতিবিদদের মধ্যে সম্পর্ক নিয়ে অনেক দিন ধরে অনুসন্ধান করছিলেন মিরোস্লাভা ব্রিচ। সেটি শেষ হবার আগেই চিহুয়াহুয়া শহরে নিজ বাড়ির সামনে আটবার গুলি করে হত্যা করা হয় তাঁকে। দিনটি ছিল ২০১৭ সালের ২৩ মার্চ। সময়, সকাল ৬টা ৫০ মিনিট। কিন্তু এই মৃত্যু চুপ করাতে পারেনি তাঁর সহকর্মীদের। হত্যাকাণ্ডের দুই বছরেরও বেশি সময় পর তারা এই হত্যা নিয়ে অনুসন্ধান শুরু করেন। প্রজেক্ট মিরোস্লাভা নামের সেই অনুসন্ধানে তারা দেখিয়ে দেন, এই হত্যাকাণ্ডের সরকারি তদন্তে কতটা দুর্বলতা আছে।

তুরস্কে গণমাধ্যম দখলের ফল যেভাবে উল্টে দিল ছোট ছোট ডিজিটাল মিডিয়া

তুরস্কে কয়েক বছর ধরেই নিরপেক্ষ সাংবাদিকদের ওপর নিপীড়ন চলছে। প্রথাগত বড় বড় গণমাধ্যমগুলো পুরোপুরি চলে গেছে রাষ্ট্রের দখলে। এত কিছুর পরও সাম্প্রতিক স্থানীয় নির্বাচনে ভরাডুবির শিকার হয়েছে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের দল। আর অবাধ তথ্যের যোগান এবং বিজয়ী বিরোধী দলের পক্ষে জনমত গঠনের শক্তিশালী ক্ষেত্র হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে স্থানীয় ডিজিটাল সংবাদমাধ্যম। প্রশ্ন হল, ছোট ছোট এসব ডিজিটাল মিডিয়া কীভাবে রাতারাতি এত শক্তিশালী হয়ে উঠেছে?

আমার প্রিয় অনুসন্ধানী টুল: ইমানুয়েল ফ্রয়েডেনথাল

অসাধারণ সব অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জন্ম দেয়া সাংবাদিক ইমানুয়েল ফ্রয়েডেনথালের প্রিয় টুলের মধ্যে আছে জিপিএস ট্র্যাকস, বিমান খোঁজার এন্টেনা, জিমেইল স্নুজ, ইত্যাদি। কিন্তু কেন এইসব টুল তার এত প্রিয়? কোন অনুসন্ধানে কীভাবে তিনি এসব ব্যবহার করেছেন? উত্তর পাবেন, এই লেখাতে। কে জানে, হয়তো এসব টুল এক দিন আপনার অনুসন্ধানেও কাজে আসতে পারে!

দীর্ঘ অনুসন্ধানে মনোযোগ ধরে রাখার ৬টি উপায়

কোনো কোনো সময় আপনি এমন অনুসন্ধানের মুখোমুখি হবেন, যা পদে পদে আপনাকে ভোগাবে। মাসের পর মাস গেলেও মনে হবে, কাজ ততটা এগুচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে অনেকেই হতাশ হয়ে হাল ছেড়ে দেন। পুলিৎজার পুরষ্কারের জন্য মনোনীত ”হার্টব্রোকেন” শিরোনামের অনুসন্ধানটি করতে গিয়ে একই সমস্যায় পড়েছিল মার্কিন পত্রিকা টাম্পা বে টাইমস। শত প্রতিকূলতার মধ্যেও তারা নিজেদের কীভাবে ধরে রেখেছিল – এখানে তা-ই তুলে ধরেছেন তাদের প্রতিবেদক নিল বেদি।