তথ্য যাচাই, সাইবার হামলা আর ক্ষ্যাপাটে অনুসন্ধানীদের নিয়ে যা বললেন বেলিংক্যাটের ইলিয়ট হিগিন্স

আমরা এমন একটা পৃথিবীতে বাস করছি যেখানে প্রযুক্তি প্রতিনিয়ত প্রতিটি ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনছে। প্রত্যেক পাঠক (সাংবাদিকসহ) প্রতিনিয়ত “ভূয়া সংবাদ” এর মুখোমুখি হচ্ছে এবং দিন দিন তা চিহ্নিত করাও হয়ে উঠছে কঠিন। এই কারণে সঠিক পথের দিক-নির্দেশনা বেশ জটিল হয়ে গেছে। বেলিংক্যাট ভুয়া খবর ও মিথ্যা তথ্যের এই জোয়ারকে কীভাবে মোকাবেলা করছে, বলেছেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ইলিয়ট হিগিন্স

সাংবাদিকতায় যেভাবে ব্যবহার হচ্ছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা

কয়েকটি বড় বার্তাকক্ষ এবং সংবাদ সংস্থা কিছু দিনের জন্য খেলাধুলা, আবহাওয়া, শেয়ারবাজারের গতিবিধি এবং করপোরেট পারফরম্যান্সের মতো খবরাখবর তৈরির ভার কম্পিউটারের হাতে ছেড়ে দিয়েছিল। অবাক করা বিষয় হলো, যথার্থতা ও ব্যাপকতার বিচারে মেশিন, কিছু সাংবাদিকের চেয়ে ভালো কাজ করেছে।

মোজো ওয়ার্কিং: স্মার্টফোনে অডিও রেকর্ড

একজন মোজো সাধারণত একাই কাজ করেন। তার সাথে সাউন্ড রেকর্ডিস্ট থাকে না। তাই সাক্ষাৎকার, ভিডিও এবং অডিও রেকর্ড করার সময় শব্দ নিয়ে সতর্ক থাকতে হয়। এটা কঠিন, কিন্তু সাউন্ড রেকর্ডিংয়ের কিছু মূলনীতি জানা থাকলে, হয়ে উঠতে পারে মোবাইলে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার কার্যকর টুল। আপনি শব্দের কাজ ঠিকভাবে করতে পারলে শ্রোতার মনোযোগও নিশ্চিতভাবে ধরে রাখতে পারবেন, কারণ তখন তারা স্টোরির আবেগ বুঝতে পারবে।