টিপশীট: কীভাবে জানবেন বিমানটি কোথায় আছে?

English

২৩ মে ২০১৯ তারিখে ট্র্যাকিং সাইট ফ্লাইটএওয়্যার থেকে নেয়া বিমান চলাচলের একটি স্ন্যাপশট। স্ক্রিনশট: ফ্লাইটএওয়্যার

বিশ্বের প্রতিটি বিমানের জন্য একটি অনন্য চিহ্ন থাকে। সেই চিহ্ন ধরে অনেক সময় বিমানগুলোর গতিপথ ট্র্যাক করা যায়। কখনো কখনো তাদের মালিকদেরকেও সনাক্ত করা সম্ভব হয়।

অনুসন্ধানী সাংবাদিকরা এই পদ্ধতি কাজে লাগিয়েছেন – দুর্নীতির তথ্য প্রকাশে,নজরদারিতে নিয়োজিত গোয়েন্দা বিমানের গতিপথ জানতে, কখনোবা আকাশপথে অপরাধী স্থানান্তরের ওপর নজর রাখতে। এমন অনেক প্রয়োজনেই আপনার কাজে আসেবে প্লেনস্পটিং।

বিমান কীভাবে ট্র্যাক করতে হয় তার একটি বিস্তারিত নির্দেশিকা তৈরি করেছে জিআইজেএন। দীর্ঘ সেই নির্দেশিকার সারসংক্ষেপ এই টিপশীট। দীর্ঘ ও বিস্তারিত গাইডটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন

আকাশে বিমানের গতিপথে নজর রাখার ব্যবস্থা এখন আরো উন্নত হয়েছে। এই কাজে এডিএস-বি (অটোমেটিক ডিপেনেডেন্ট সার্ভেইল্যান্স-ব্রডকাস্ট) নামের একটি নতুন ট্র্যাকিং সিস্টেম ব্যবহার হচ্ছে, যা ধীরে ধীরে সবাই গ্রহন করে নিচ্ছে। এর দু’টি সুবিধা। প্রথমত, এটি আগের প্রযুক্তির চেয়ে আরো নির্ভুল তথ্য দিতে পারে। দ্বিতীয়ত, মার্কিন আইন অনুযায়ী যেসব বিমান নিজেদের অবস্থান গোপন রেখে চলাচলের সুবিধা পায়, তারাও এই ট্র্যাকিং ব্যবস্থার অন্তর্ভুক্ত।

বিশ্বব্যাপী উড়োজাহাজ ট্র্যাকিং করা সম্ভব হচ্ছে মূলত কিছু বাণিজ্যিক ও অলাভজনক প্রতিষ্ঠানের কারণে। তারা সরকারী ও বেসরকারি উৎস থেকে বিপুল পরিমান ফ্লাইট ডেটা সংগ্রহ করে। এখানে তেমন চারটি সাইটের বিবরণ দেয়া হল, যারা সাংবাদিকদের সাথে কাজ করতে আগ্রহী।

এডিএসবি এক্সচেঞ্জ: এটি অন্যান্য ট্র্যাকিং সাইটের চেয়ে আলাদা। মার্কিন আইন অনুযায়ী, কোনো প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করে, নিজেদের উড়োজাহাজের গতিপথ গোপন রাখতে পারে। কিন্তু এডিএসবি এক্সচেঞ্জ, সেই সব মার্কিন উড়োজাহাজের তথ্যও প্রকাশ করে। এ কারণে সাইটটি সাংবাদিকদের কাছে বেশ আকর্ষণীয়। এটি অ-বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত। সাংবাদিকরা তাদের অনুসন্ধানী প্রকল্পের কাজে এই যোগাযোগ ফর্ম ব্যবহার করে সাহায্য চাইতে পারেন।

ফ্লাইটএওয়্যার: আপনি রেজিস্ট্রার না করেও অতিথি হিসেবে ফ্লাইটএওয়্যার ব্যবহার করতে পারবেন। তারা ফ্রি বিমান ট্র্যাকিংয়ের সুবিধা দেয়। চাইলে কোনো নির্দিষ্ট উড়োজাহাজের বিবরণ দিয়ে এলার্টও সেট কররে রাখতে

পারবেন। সাংবাদিকরা বাড়তি সহায়তার জন্য যোগাযোগ করতে পারেন তাদের বিপণন পরিচালক সারা ওরসির সাথে, এই ইমেইল ঠিকানায়: sara.orsi@flightaware.com।

ফ্লাইটরাডার২৪: এটি একটি বাণিজ্যিক ফ্লাইট ট্র্যাকিং সার্ভিস। তবে তারা বিনামূল্যে ফ্লাইট ট্র্যাকিংয়ের সুযোগ দেয়। ফ্লাইটরাডার এর আগে একাধিক সুনির্দিষ্ট প্রকল্পে সাংবাদিকদের সাথে কাজ করেছে। বাড়তি সহায়তার জন্য Ian@fr24.com, এই ঠিকানায় ইয়ান পেচেনিকের সাথে যোগাযোগ করুন।

ওপেনস্কাই নেটওয়ার্ক: ওপেনস্কাই নেটওয়ার্ক সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক একটি অলাভজনক সংগঠন। তারা মূলত একাডেমিক এবং অলাভজনক গবেষণার কাজে নিয়োজিত, কিন্তু সুনির্দিষ্ট অনুরোধ পেলে সাংবাদিকদের সহায়তা করে।

বিমানের মালিকদের চিহ্নিত করা তাত্ত্বিকভাবে সম্ভব, কিন্তু কার্যত বেশ কঠিন। কারণ, বেশিরভাগ দেশ উড়োজাহাজ মালিকদের নিবন্ধন তথ্য প্রকাশ করে না। খোঁজাখুঁজি শুরু করার জন্য এরোট্রান্সপোর্ট একটি ভালো জায়গা। এখানে কিছু অনুসন্ধান বিনামূল্যে করা যায়। তার বাইরে, তথ্য পেতে হলে সাবস্ক্রিপশন প্রয়োজন হয়। এছাড়াও এয়ারফ্রেমস এবং আরজেডজেটস দেখুন।